Saturday, July 4, 2020

গ্রিসের নতুন কবিতা || রুদ্র কিংশুক || এফটাইচিয়া পানায়িইওটু-র কবিতা

গ্রিসের নতুন কবিতা 
রুদ্র কিংশুক 
এফটাইচিয়া পানায়িইওটু-র কবিতা

এফটাইচিয়া পানায়িইওটু ( Eftychia Panayiotou, 1980)-র জন্ম সাইপ্রাসে। তিনি একজন কবি, কপি-এডিটর, কবিতা-অনুবাদক, এবং পুস্তক সমালোচক। আথেন্সে তিনি দর্শনের পাঠ নিয়েছেন এবং লন্ডনে তিনি আধুনিক গ্রিক সাহিত্যের নিয়ে লেখাপড়া করেছেন। তাঁর প্রথম কাব্যগ্রন্থ megas kipouros (2007) এবং দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্থ  Mavri Moralina (2010)। কবিতার জন্য তিনি একাধিক পুরুস্কারে  মনোনীত হয়েছেন। তার কবিতা ইংরেজি,জার্মান, ইটালিয়ান, স্প্যানিশ, ক্রোয়েশিয়ান প্রভৃতি ভাষায় অনূদিত।  পানায়িইওটু  প্রখ্যাত আমেরিকান কবি   আন সেক্সটনের (Anne Sexton) লাভ পয়েমস-এর অনুবাদ করেছেন গ্রিক ভাষায়। এছাড়া অন্যান্য কয়েক জন আমেরিকান কবির যেমন কবিতাও অনুবাদ করেছেন গ্রিক ভাষায়।


১.
কঠিন যন্ত্রণা

আমি ছেড়ে যেতাম আরো ভালো আমি হয়ে ফিরবো বলে।
এখন আমি শুধু বদলে যাই, আর কোন পথ নেই। শব্দও পাল্টায়, বেনিয়মে,যেন আমরা বলছি ভিন্ন
 ভাষা --- একগুঁয়ে নিবেদন ভাষার কাছে -- যার
 জন্য আমি খুঁড়েছিলাম কিছুটা স্বস্তি পেতে।
 এখন আমি হয়ে উঠেছি অচেনা, আমি পিন বার করি, আমি এগিয়ে চলি
-- জঠর থেকে সর্বোচ্চ উচ্চতায়-- আর তুমি আগুন হয়ে যাও
এর অর্থ আছে, এই যন্ত্রনা, আমি আর বেশি বোধ করিনা।

 সময় কষ্ট পায়---আমি হয়ে উঠি
ভিজে কঠিন।

২.
মহান বাগানমালী
(মিলটসের জন্য)

এই সন্ধ্যায় আমার বাগানমালী  বকছে প্রলাপ।
সে মাটিতে বপন করে শব্দ,
মাটির নিচে শব্দের সমাধি দেয়।
শব্দকে দুঃখ দেয়, যাকে প্রথমে সে আঘাত করে
 তারপর বাঁধে নির্ভয়ে
 তাদের জন্য তার কোন দয়া নেই,

তারা কাঁদে, তারা  আঘাত ক‍রে, তারা চীৎকার করে, তারা অভিশাপ দেয়
---তারা শব্দ শেষ পর্যন্ত ---
কিন্তু সে তাদের নীরব করে।
 সে  আঘাতে রক্ত ঝ‍রায়।
 এই মানুষ আমার বাগানমালী নয়।

সে বপন করে মৃত্যু
আমি বপন করি  মৃত্যু
আমিহইমৃত্যু।

No comments:

Post a Comment

কিছু বই কিছু কথা । নীলাঞ্জন কুমার এইটুকু । তাপস সরদার

  কিছু বই কিছু কথা । নীলাঞ্জন কুমার  এইটুকু । তাপস সরদার । মৌহারি । পন্ঞ্চাশ টাকা । কখনো কখনো কোনো কোনো কবি তেমন উল্লেখযোগ্য কবিতা না লিখতে...