মঙ্গলবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০

কিছু বই কিছু কথা || নীলাঞ্জন কুমার

কিছু বই কিছু কথা । নীলাঞ্জন কুমার 

প্রিয় সোমক । সোমেন ঘোষ । পোয়েট্রি রিভিউ । চল্লিশ টাকা ।

'  আচ্ছা কবিতায়  কি লেখা যায় শেয়ারের ওঠাপড়া! /অথবা ভিজে বেড়াল কিভাবে গা শুকিয়েছিল/  হাল্কা রোদ্দুরে ? ' ( ' খোলা চিঠি ') , ' দাদা হওয়া মানে তিক্ত নিম ফুলের মধু বিতরণ,  / দাদা হওয়া মানে চিতার সঙ্গে রিলে রেস ' ( ' দাদা ' ) - র মতো বিস্ময়কর,  দৃঢ় ও সোজাসুজি কথা বলার ক্ষমতা নিয়ে কবি সোমেন ঘোষ গড়ে তুলেছেন তাঁর কাব্যগ্রন্থ  ' প্রিয় সোমক ' । কাব্যগ্রন্থের বেশ কিছু কবিতা কবি সোমক দাসকে লেখা চিঠিকেন্দ্রিক । যার মধ্যে তিনি অদ্ভুত অদ্ভুত প্রশ্ন করেছেন ও যা অচিরে কবিতা হয়ে উঠেছে ।
         কবি অত্যন্ত কম লেখেন,  রঙ্গ ব্যঙ্গের কারবারি,  রম্য রচনা মূলক গ্রন্থও আছে । তাঁর সোজাসাপ্টা উচ্চারণ আজকের বেশিরভাগ কবির  দোলায়িত জীবনানন্দীয় উচ্চারণ থেকে বেশ আলাদা । সে কারণে স্পর্শ করে:  ' মাথার ওপর হাইটেনশন/  তার ওপর আকাশ/ আকাশের ওপারে আকাশ ' ( ' হাইটেনশন ' )   , ' প্যাচা এবং বাদুড়ের মাথা,  উল্টোদিকে ঘোরে আর ঝোলে/  এটাও কি জানা দরকার? ' ( ' ছড়াকৃতি ') , ' এদল ওদল পাল্টে পাল্টে শতদলে পরিপূর্ণ/   নিঝুম রাতে ছুঁড়ির কাছে,  মহামান্যের দর্পচূর্ণ  ! ( ' পাল্টিঘর ')।
         শ্লেষ এবং ক্রোধ কোন জায়গায়  পৌঁছোতে পারে তা কবিতায়  বড় সুন্দরভাবে তুলে ধরেছেন কবি । তাঁর কবিতা পড়তে গিয়ে কোথাও ধাক্কা খেতে হয় না,  বড় নির্মম অথচ মধুর তাঁর উচ্চারণ জ্বালা ও মজা দেয় । যেমন: ' সবকটা তালা খুলে বলে দের সূর্য ওঠার আগেই/   ঠাকুরকে ডেকে ডেকে চোখ লাল করে ফেলব মা । / হাতকাটা হারুর গালে কষে থাপ্পড় লাগিয়ে বলব/  সাম্রাজ্যবাদ নিপাত যাক । ' ( 'মা '), '  ঢাকের বোলে শুনতে পাও,  / ড্যাডাং ড্যাডাং রেপ,  / একক্ষেপ ,  দুক্ষেপ , তিনক্ষেপ  ? ' (  নীল ডটপেন ছেড়ে ')। প্রচ্ছদের ক্ষেত্রে অর্জুন বসু রায়ের পরিকল্পনায় বইটির আবহ জানা যায় । তাঁকে ধন্যবাদ ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

আশ্চর্য সহবাস || শ্রাবণী গুপ্ত || কবিতা

আশ্চর্য সহবাস শ্রাবণী গুপ্ত একটা গোটা জীবন আমরা গাছের বেড়ে ওঠা দেখলাম জাফরীর মতো আলো-ছায়া এসে পড়ল আমাদের গায়ে, হৃদয়ে তবু ঘৃণা করতে গিয়ে আম...