সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সৌমিত্র রায় -এর জন্য গদ্য || প্রভাত চৌধুরী || ধারাবাহিক গদ্য

সৌমিত্র রায় -এর জন্য গদ্য

প্রভাত চৌধুরী



১৪০.

২১ এবং ২২ জুন মুর্শিদাবাদের দুটি প্রান্ত , রঘুনাথগঞ্জ এবং ফারাক্কায় কবিতাপাক্ষিকের ১০ বছর পূর্তি উৎসবের খবর আগেই লিখেছিলাম। এখন লিখব ভগবানগোলা , বেলডাঙা এবং বহরমপুরের কথা।

১৫ আগস্ট ২০০৩ শুক্রবার সকাল ১০ টার অনেক আগেই আমরা পৌঁছে গিয়েছিলাম এবাদুল হকের বাড়ি। ' আবার এসেছি ফিরে ' সম্পাদক কবি এবাদুল হক আপ্যায়নের ত্রুটি রাখেনি। 

ভগবানগোলা-র এই অনুষ্ঠানটির ছিল দুটি পর্ব। প্রথম পর্বে বাংলা বানান। আলোচনায় ছিলেন মান্যবর অশোক মুখোপাধ্যায় এবং আমি।

দ্বিতীয় পর্বে ১০ বছর ।

আয়োজক মুর্শিদাবাদ সাহিত্য আকাদেমি। আহ্বায়ক এবাদুল হক।

আমি এই অনুষ্ঠান থেকে অনুপ্রণিত হয়েছিলাম। প্রথম কারণ অশোক মুখোপাধ্যায় -এর মতো পণ্ডিত মানুষের সঙ্গে বানানের ক্লাসে মঞ্চ ভাগ করার সম্মান। এর থেকে খুব বেশি চাওয়ার থাকে না। 

দুপুরে খাওয়া-দাওয়া নিয়ে মাত্র একটা কথাই বলব : সকলে একসঙ্গে বড়ো তৃপ্তি করে খেয়েছিলাম।

দ্বিতীয় পর্বে কবিতাপাক্ষিক-এর ১০ বর্ষ পূর্তির ২৬ তম উৎসব । এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নিখিলকুমার সরকার সন্দীপ বিশ্বাস সমরেন্দ্র রায় শাহজাদ হোসেন নুরুল আমিন বিশ্বাস কবিরুল ইসলাম কঙ্ক অপরেশ চট্টোপাধ্যায় আব্দুল বারি মোজাম্মেল হক  গীতা কর্মকার নীলিমা সাহা রাজন গঙ্গোপাধ্যায় প্রমুখ মুর্শিদাবাদ -এর বিশিষ্ট কবিজনেরা। কলকাতা থেকে নাসের হোসেন গৌরাঙ্গ মিত্র এবং আমি। 

এবাদুল জানালো কবি কার্তিক মোদকও গিয়েছিল ভগবানগোলা।

রাত্রে ফিরে এসেছিলাম বহরমপুর।ে। চিরটা কাল বহরমপুরে আমাদের থাকার দায়িত্ব পালন করে এসেছেন কবি সন্দীপ বিশ্বাস। রাজ্য বিদ্যুৎ পর্ষদের গেস্ট হাউস ছিল আমাদের স্থায়ী ঠিকানা। আর খাবার পৌঁছে দেবার দায়িত্ব পালন করে সমর মাস্টার বা কবি সমরেন্দ্র রায়।

পরের দিনের উৎসব বেলডাঙায়। আয়োজক কবিরুল ইসলাম কঙ্কো 'এখন প্রতিচ্ছবি ' পত্রিকার পক্ষে।

১৬ আগস্ট শনিবার দুপুর দুটোয় বেলডাঙা সি . আর. জি এস স্কুলে অনুষ্টান শুরু হয়ে হয়েছিল। বহরমপুর এবং আমাদের টিমের সঙ্গে যুক্ত হয়েছিলেন স্থানীয় কবিজনেরা।

এই উৎসব-কে কেন্দ্র করে বেলডাঙা এবং পার্শ্ববর্তী অঞ্চলের কবিদের মধ্যে যে উৎসাহ দেখেছিলাম , তা এখনো ভুলে যাইনি। কবিরুল এই উৎসবকে যেভাবে গ্রহণ করেছিল তার নজির খুব বেশি নেই।

১৭ আগস্ট রবিবার দুপুর একটায় বহরমপুরের ঐতিহ্যময় গ্রান্ট হলে  উৎসবের আয়োজক কবি সন্দীপ বিশ্বাস। সন্দীপ বিশ্বাস -এর একমাত্র বিকল্প হল সন্দীপ বিশ্বাস। 

অরিজিন্যাল এবং বিকল্প , এই সন্দীপ বিশ্বাস একাই একশো। তা আরো একবার প্রমাণিত হয়েছিল। মনে হচ্ছিল গ্রান্ট হলে চলছে গ্রান্ড কার্নিভাল।

 এবার একটু আত্মপ্রচার করা যাক। আমি তথা আমরা কী অসাধ্যসাধন করেছিলাম তার কোনো জেরোক্স হয় না। অন্য কেউ এরকমটা করা তো দূরে থাক , করার কথাও ভাবতে পারেন না।

একবার ধ্যান দিয়ে দেখুন :

১৫ আগস্ট ,সকাল১০টা -- ভগবানগোলা।

১৬ আগস্ট ,দুপুর ২ টো -- বেলডাঙা ।

১৭ আগস্ট ,দুপুর ১টা -- বহরমপুর।

এই টানা তিনদিনের কবিতাযাত্রার নজির খুঁজে দেখুন। খুঁজে পেলে আমাদের জানান।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নিউ নরমাল আই ফেস্ট ২০২০ || বিশেষ প্রতিবেদন

দারুণভাবে সফল হল "নিউ নরমাল আই-ফেস্ট ২০২০ " বিস্তারিত প্রতিবেদন পড়তে দয়া করে আজ রাত ৯টার পর রিফ্রেশ করুন... বিশেষ প্রতিবেদন, দৈনিক...