সোমবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০২০

সৌমিত্র রায় -এর জন্য গদ্য ২২০ || প্রভাত চৌধুরী || ধারাবাহিক গদ্য

সৌমিত্র রায় -এর জন্য গদ্য

প্রভাত চৌধুরী





২২০.

' বলার কথা কম। সেকারণে বারবার একই কথা বলি ' এবার আমার বিরুদ্ধে আপনি একদম সঠিক কথাটি বলেছেন। অর্থাৎ আমার শূন্য কলসিটির সন্ধান আপনি পেয়ে গেছেন। আপনি আমার অজ্ঞানতা জেনে গেছেন। বুঝে গেছেন। আমার মুখোশ খুলে ফেলেছেন। আমি আপনার এই মতের কোনো বিরোধিতার রাস্তায় হাঁটতে যাবো না। কারণ আপনার বিরুদ্ধে যাবার কোনো ক্ষমতাই নেই। যথার্থই আমার বলার কথা খুবই কম।

আমি গত দু-দশকের বেশি সময় ধরে বা গত কুড়ি বছরেরও বেশি সময় প্রায় একই কথা বলে চলেছি ঘুরিয়ে ফিরিয়ে।কথাটি হল : আপডেট।

কবিতাকে আপডেট করতে হবে।

এবং

আপডেট করা-ই কবিদের প্রধানতম কাজ।

কিছু কিছু জন্মান্ধ মানুষ আছেন , তাঁরা আপডেট শব্দটি চিনতে চান না।তাঁদের কবিতার পরিমণ্ডল  চল্লিশের অ-প্রধান কবিদের অনুরূপ। তাঁদের কবিতা থেকে যেসব বর্ণমালা বা শব্দ উঠে আসে সেসব এতটাই  প্রাচীন যে আজকের সময়ের সঙ্গে খাপ খায় না। তবু তাঁরা আছেন। সুখে আছেন। গণতন্ত্রে আছেন। সমমতের সঙ্গীদের সঙ্গে মস্তিতে আছেন। তা থাকুন। ইচ্ছে মতো থাকুন। কিন্তু রাস্তাঘাট ঠিকঠাক জেনে এবং চিনে চলাফেরা করতে হবে তো।  মনে রাখতে হবে রাস্তায় এখন গ্যাসবাতি নেই। নতুন প্রযুক্তির সব আলো লাগানো হয়েছে। চোখ ধাঁধিয়ে যেতে পারে । কালো চশমা এবং হাতে সাদা লাঠি ব্যবহার করুন।

অপেক্ষা করুন , অচিরেই ব্রেইল লিপিতে আপডেট কথাটির ব্যাখ্যা বাজারে এসে পড়বে । ততদিন বাড়িতেই থাকুন । নিরাপদে থাকুন। সাম্প্রতিক কবিতা থেকে শতহস্ত দূরে থাকুন। এসব পড়লে আপনার মানসিক শান্তি বিঘ্নিত হবে ৷

আগের অংশটা লিখেছিলাম ৯ ডিসেম্বর। সকালে । তারপর আমি লেখার মতো অবস্থায় ছিলাম না। আমি ক্ষমাপ্রার্থী। এখনো লেখার মধ্যে ফিরতে পারিনি। 

নাসের হোসেন-এর চলে যাওয়াটা মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে। খুব কষ্ট হচ্ছে।

নাসের যে কেবলমাত্র আমার বন্ধু ছিল , ভাই ছিল ,সহযোদ্ধা ছিল তা নয়। নাসের ছিল আমার পথ-প্রদর্শক। আমার থেকে বয়সে বেশ অনেকটাই ছোটো। তবু আমাকে পথ দ্যাখাতো , শুনতে না বিশ্বাস করতে অসুবিধা হলেও এই কথাটি খাঁটিকথা।

নাসের -এর অনুপস্থিতে আমাকে পথ হাঁটতে হবে। এটা কীভাবে সম্ভব তা জানি না।

আমি তো এতদিন নাসের -এর পায়ে হাঁটতাম। আমি গত কয়েক বছর হাঁটাহাঁটি কমিয়ে দিতে বাধ্য হয়েছিলাম ।আমি আমার পা-কে ঠিক রাখতে পারতাম না। ব্যবহার করতাম নাসেরের পা। আমি কানেও শুনতে পাই না। যতটুকু শুনি তা নাসেরের কান দিয়ে। আমার দ্যাখার অনেকটাই নাসেরের চোখ দিয়ে। আর পরামর্শ ! প্রায় সবটাই নাসেরের পরামর্শে ছিল আমার যাপন। 

এখন এক নতুন অবস্থায় , নতুন পরিস্থিতি ! দেখি কী হয় ! এখন একটা নতুন পথের সন্ধান করতে হবে।

দেখি কী হয়।

1 টি মন্তব্য:

নীলিমা সাহা-র আটপৌরে ১২৭-১২৯ নীলিমা সাহা //Nilima Saha, Atpoure Poems

  নীলিমা সাহা-র আটপৌরে ১২৭-১২৯ নীলিমা সাহা //Nilima Saha, Atpoure Poems   নীলিমা সাহার আটপৌরে  ১১৭) কাকভোর  থেকে   কাকসন্ধ্যা               ...