সোমবার, ১ জুন, ২০২০

সৌমিত্র রায়- এর জন্য গদ্য || প্রভাত চৌধুরী || ধারাবাহিক গদ্য

সৌমিত্র রায়- এর জন্য গদ্য
প্রভাত চৌধুরী

৩০.
গত কিস্তিতে ছিল বইমেলা দৈনিক- এর।বা বকেয়াকথা। আগে বলার কথা ।এখন ফিরে যাচ্ছি বাজোরিয়া গেস্ট হাউজে।মনে আছে নিশ্চয়ই। বাঁকুড়ার লালবাজারের এই গেস্টহাউজটির কথা।
সঞ্চালক জ্যোৎস্না কর্মকার কবিদের নাম ডাকা শুরু করে দিলেন। একে একে কবিতা পড়লেন :
রফিক উল ইসলাম গৌতম ব্রহ্মর্ষি তপন ত্রিপাঠী কার্তিক মোদক সুমিতেশ সরকার দেবাশিস চাকী লক্ষ্মণচন্দ্র মল্লিক নাসের হোসেন প্রবুদ্ধ বাগচী শান্তিময় মুখোপাধ্যায় রণজিৎ দাশগুপ্ত সৈয়দ কওসর জামাল কানাইলাল জানা হিমাদ্রিশেখর দত্ত গোপাল আচার্য অলোক বিশ্বাস উত্তর বসু শৈলেন গড়াই দিলীপ ভৌমিক শান্তনু বন্দ্যোপাধ্যায় দীপ সাউ জয়দীপ চক্রবর্তী রমেশ তালুকদার কুমুদবন্ধু নাথ জমর সাহানী নিখিল পাণ্ডে বুদ্ধদেব চক্রবর্তী স্নেহাশিস মুখোপাধ্যায় শ্যামলী রায় শরৎ ভট্টাচার্য পার্থজিৎ ভক্ত গৌতম ভট্টাচার্য নমিতা মুখার্জি সত্য পতি ঝর্না মুখার্জি দোলন বন্দ্যোপাধ্যায় মানসকুমার চিনি প্রদীপ কর অসীম বন্দ্যোপাধ্যায় বিদ্যুৎ পরামাণিক চঞ্চল দুবে সচ্চিদান্দ হালদার জীতেন চ্যাটার্জি শেখ আপ্তার আলি শ্যামাপদ কর্মকার সুদেব বক্সী মানু রানা দীনবন্ধু চট্টরাজ পার্থসারথি কর্মকার রামকৃষ্ণ মাজী নয়ন রায় চন্দন চৌধুরী তারাশংকর চক্রবর্তী ভূদেব কর শ্যামল মাহাতা স্বপন বন্দ্যোপাধ্যায় মনোরঞ্জন চ্যাটার্জি মোহন সিংহ শর্বানী পাল উজ্জ্বল পাল  বঙ্কিমচন্দ্র কর্মকার রূপাই সামন্ত অপরেশ মুখোপাধ্যায় প্রণব চট্টোপাধ্যায় গুরুপদ মাহান্ত প্রদীপ হালদার আনন্দ দাস জ্যোৎস্না কর্মকার অনিন্দ্য রায় প্রলয় মুখোপাধ্যায় সোমনাথ কবিরাজ। সুব্রত চেল-এর কবিতা পাঠ করেন নাসের হোসেন ।আমার কবিতা পাঠ করেছিল শুভ্রা সাউ ও সুমিতেশ সরকার। রাজকল্যাণ চেল-এর কবিতা পড়েছিল সুশান্ত মাজী।
আবৃত্তি করে শোনান : ডা: নীলাদ্রি বিশ্বাস রামরঞ্জন ঘোষাল।
অনুষ্ঠানের পরেই ছিল প্রেস- বৈঠক।
ছিল বাঁকুড়া জেলা কবিতা উৎসব , কিন্তু একে কি সারা বাংলা কবিতা উৎসব বলা যায় না?
সারা রাতের হৈ-হুল্লোড়ের কথা লেখা যাবে না। তবে প্রতিষ্ঠিত কবিরা সারারাত একজন কবিকে ঘিরে বেশ মজা করেছিলেন, এটা লিখে রাখলাম। নামগুলি মুছে দিলাম।
শেষেরও শেষ আছে । পরদিন সকালে বাসে যেতে যেতে পকেটে হাত দিয়ে দেখি একটা লাল গোলাপ। মনে পড়ল ফুটফুটে এক কিশোরী আগের দিন সেটা দিয়ে বলেছিল :দোহাই , আমাদের ভুলে যাবেন না।
ভুলে যাওয়া খুব কষ্টকর কাজ ,গোলাপ ! আজও ভুলে যাইনি ।
1995-এর সেই কিশোরী আজ মধ্যবয়সের রমণী। সে কি মনে রেখেছে আমাকে ,আমাদের।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

সবাই মিলে সিনেমা হলে ২১ || সিনেমা ও বিরতি || কান্তিরঞ্জন দে

  সবাই মিলে সিনেমা হলে ( ২১) সিনেমা ও বিরতি  কান্তিরঞ্জন দে        নমস্কার ।  উৎসবকালীন বিরতির পর আবার ফিরে এলাম । আমরা যখন সবাই মিলে সিনেমা...