Friday, June 26, 2020

প্রভাত চৌধীরী || সৌমিত্র রায়- এর জন্য গদ্য || ধারাবাহিক গদ্য

সৌমিত্র রায় -এর জন্য গদ্য
প্রভাত চৌধুরী



৫৩.
২৯ জুন ১৯৯৭ , দুপুর ২টো ।পশ্চিমবঙ্গ বাংলা আকাদেমি সভাঘর । শুরু হল সেমিনার। বিষয় :
কবিতার নতুন মানচিত্র --- পোস্টমডার্নিজম।
অংশগ্রহণ করেছিলেন : ড. প্রদীপ বসু সমীর রায়চৌধুরী অশোক বিশ্বনাথন সুজিত সরকার
সঞ্চালক :  উৎপলকুমার বসু।
এদিনের আলোচনা ছিল বেশ জোরালো এবং আকর্ষণীয়।

ওইদিনেও ছিল আধ ঘণ্টার বিরতি। বিরতির পর কবিতাপাঠ। অংশগ্রহণ করেছিলেন : রত্নেশ্বর হাজরা প্রমোদ বসু শবরী ঘোষ কামাল হোসেন সুবোধ সরকার প্রদীপচন্দ্র বসু ধীমান চক্রবর্তী মল্লিকা সেনগুপ্ত  সর্বজিৎ সরকার গোপাল আচার্য জয়ন্ত ভৌমিক আবীর সিংহ পঙ্কজ মণ্ডল নমিতা চৌধুরী
তীর্থংকর মৈত্র শ্যামলকান্তি দাশ হিমাদ্রিশেখর দত্ত বিভাবসু অমিত নাথ রামকিশোর ভট্টাচার্য সুশান্ত মুখোপাধ্যায় প্রদীপ রায়গুপ্ত সুধীর দত্ত কাজল চক্রবর্তী প্রফুল্ল পাল অর্ণব সাহা গোপাল দাশ দীপঙ্কর সরকার সমীর চট্টোপাধ্যায় প্রদীপ হালদার বিশ্বজিৎ লায়েক আনন্দ দাস উত্তর বসু অরূপ পান্তি অংশুমান কর অজয় নাগ শম্ভু রক্ষিত নীলাদ্রি ভৌমিক সৈয়দ হাসমত জালাল সুব্রত গঙ্গোপাধ্যায় শান্তিময় মুখোপাধ্যায় চৈতালী চট্টোপাধ্যায় পলাশ বর্মন সমরেন্দ্র দাস অমৃতেন্দু মণ্ডল অশোককুমার দে শুভব্রত দত্তগুপ্ত স্নেহাশিস মুখোপাধ্যায় প্রদীপ কর দেবব্রত চট্টোপাধ্যায় তাপস দত্ তো জয়ন্ত জয় চট্টোপাধ্যায় অরূপ দত্ত।
এই কবিতাপাঠের আসরের সঞ্চালক ছিলেন মঞ্জুষ দাশগুপ্ত।
সবশেষে সকলকে  ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছিলাম আমি।
দু-দিনের এই উৎসবের মুখ্য দায়িত্বে ছিলেন সৈয়দ কওসর জামাল।
পত্রপত্রিকা এবং বই বিক্রির দায়িত্বে ছিল তরুণ কবি পলাশ বর্মন।

কবিতাপাক্ষিক ১০১ সংখ্যায় এই কবিতা উৎসবের সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল। লিখেছিল নাসের হোসেন। সেই রিপোর্টাজ থেকেই আমার যাবতীয় হম্বিতম্বি। আমি কখনোই স্মৃতিধর ছিলাম না । ভুলে যাই।
একমাত্র অপমানগুলি ভুলে যাই না। জমিয়ে রেখে দিই। কোনো প্রতিকার কিংবা প্রতিশোধের জন্য নয়। অপমান জমিয়ে জমিয়ে অপমানের একটা সৌধ রেখে যেতে চাই । যাঁরা আমাকে অপমান করেছেন , আমি তাঁদের একটি অপমানও ভুলে যাইনি। সেই অপমানগুলিকে আমি ইঁটে রূপান্তরিত করে নিয়েছি। সেই ইঁটগুলি দিয়েই সৌধটি নির্মাণ করা হবে। সেই নির্মাণের কাজই এখন শুরু করেছি।
 এই কবিতাপাক্ষিক১০১ সংখ্যার ব্যাক কভারে একটি বিজ্ঞাপন প্রকাশিত হয়েছিল। বিজ্ঞাপনটি পড়ুন :
                       কাছাকাছি নয়
        বইপাড়ার কেন্দ্রে পৌঁছে গেল
                         কবিতাপাক্ষিক
সোম থেকে শুক্র  □ বিকেল ৫ টা থেকে সন্ধে ৭ টা
শনিবার □ দুপুর ২টো থেকে সন্ধে ৭টা
       পত্রিকা এবং প্রকাশনা সংক্রান্ত
        যাবতীয় যোগাযোগ কেন্দ্র
প্রযত্নে : অন্নপূর্ণা প্রকাশনী
৩৬ কলেজ রো , কলকাতা ৭০০০০৯
 আমাদের তিনসঙ্গী-র খুব কাছেই। অথচ বহু দূরে।
সেই অন্নপূর্ণাকথা আগামীকাল।


No comments:

Post a Comment

আটপৌরে সিরিজ : ৫ || অলোক বিশ্বাস || কবিতা

আটপৌরে সিরিজ : ৫  অলোক বিশ্বাস অন্যতাপ্রবণ ----------------- মন্দিরের ঘণ্টা বাজলেও মানুষেরা পছন্দ করে ঝর্নার ধ্বনি ট্র্যাডিশন -...