শনিবার, ১৮ জুলাই, ২০২০

অনন্য দ্রাঘিমা:অন্য ভাষার কবিতা || রুদ্র কিংশুক || পোল স্কারোঁ-র কবিতা

অনন্য দ্রাঘিমা:অন্য  ভাষার কবিতা 
রুদ্র কিংশুক
পোল স্কারোঁ-র কবিতা 


বাঙালি পাঠকের সঙ্গে পোল স্কারোঁ (Paul Scarron, (1610-1660)-র প্রথম পরিচয় ঘটান বিশিষ্ট লেখক কমলকুমার মজুমদার (১৯১৪-১৯৭৯) তাঁর 'গোলাপ সুন্দরী' (বাংলা ১৩৮৯) উপন্যাসে।  উপন্যাসের নায়ক বিলাস টিবি রোগে আক্রান্ত হয়ে স‍্যানেটোরিয়ামে ভর্তি হয়। সেখানে অন্য রোগীদের সঙ্গে তার দেখা হয় আর একজনের  যার নাম চেট্টি  যে সর্বদা মৃত্যু ভাবনায় আচ্ছন্ন। জীবনের চারিদিকে সে  আসন্ন মৃত্যুর উপস্থিতি টের পায়।তাই প্রতিনিয়ত সে তার প্রিয় এপিটাফটি উচ্চারণ করে। সেটটির এই উচ্চারণ তার ব্যক্তিগত থাকে থাকে না। এপিটাফটি ক্রমশ হয়ে ওঠে স্যানেটোরিয়ামে একটি সর্বব্যাপী উপস্থিতি। কমলকুমার বাঙালি পাঠকদের এতটাই শিক্ষিত ভাবতেন যে উপন্যাসে শিক্ষিত ভাবতেন যে উপন্যাসে এপিটাফটি বাংলা বর্ণিকরনে ফরাসি ভাষাতেই উদ্ধৃত।

স্কারোঁ ছিলেন একাধারে কবি, নাট্যকার এবং ঔপন্যাসিক। নানান দুর্ভাগ্যের শিকার এবং শারীরিকভাবে অক্ষম ছিলেন স্কারোঁ। তাঁর শরীরের উপরাংশ  চিরতরে বেঁকে চুরে গিয়েছিল। পা দুটো ছিল আসার, পক্ষাঘাতগ্রস্ত । শারীরিক এবং মানসিকভাবে  একজন বিপর্যস্ত মানুষ। এই দৈহিক ও মানসিক যন্ত্রণার প্রকাশ ঘটেছে তাঁর লেখায়। এখানে তাঁর  এপিটাফটির সঙ্গে একটি নাতিদীর্ঘ কবিতার অনুবাদ উপস্থাপন করা হলো।

১.
অগ্নি পাত্রে রাখা সৌন্দর্য

সে সৌন্দর্য অগ্নিপাত্রে রাখা
 স্টিলের হৃদয়
 তুমি আমাকে রেখেছো পাশে
 রক্ত-আগুনে হয়েছে সঠিক সমন্বয়।
হায় প্রেম, আমায় তুমি করলে গ্রহণ
 ইঁদুরকে নেয় বেড়াল যেমন।

২.
 এপিটাফ

ঈর্ষা নয়,  করুনাই  করো আজ তাকে
যে এখন এখানে একা ঘুমিয়ে আছে ,
বহু মৃত্যু ছুঁয়েছিল মৃত্যু পূর্বে যাকে
যে মরণ অন্তর্গত জীবনের কাছে।

পাশ দিয়ে চলে যাও, যাবে তুমি যদি
শব্দ নয়, ভেঙো নাকো ঘুম, যত্নে আরো
আজই এসেছে প্রথম সে রজনী আদি
ঘুমাচ্ছে প্রথম আজ হতভাগ্য স্কারোঁ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

আশ্চর্য সহবাস || শ্রাবণী গুপ্ত || কবিতা

আশ্চর্য সহবাস শ্রাবণী গুপ্ত একটা গোটা জীবন আমরা গাছের বেড়ে ওঠা দেখলাম জাফরীর মতো আলো-ছায়া এসে পড়ল আমাদের গায়ে, হৃদয়ে তবু ঘৃণা করতে গিয়ে আম...