সোমবার, ২০ জুলাই, ২০২০

গ্রিসের নতুন কবিতা || রুদ্র কিংশুক || চ্লোয়ি কৌটসৌমবেলি-র কবিতা

গ্রিসের নতুন কবিতা 
রুদ্র কিংশুক
চ্লোয়ি  কৌটসৌমবেলি-র কবিতা


চ্লোয়ি কৌটসৌমবেলি (Chloe Koutsoumbeli, 1962) জন্ম নিয়েছেন গ্রিসের থেসালোনিকি শহরে। প্রসঙ্গক্রমে এখানে বলে রাখা যাক যে, এই শহরটি নামকরণ হয়েছে গ্রিক বীর আলেকজান্ডারের বোনের নাম অনুসারে। কৌটসৌমবেলি  আরিস্ততল ইউনিভার্সিটি থেকে পাঠ নিয়েছেন আইন বিদ্যার এবং আঠারো বছর ধরে কাজ করেছেন একটি অর্থসংস্থা । এদিক থেকে তাঁর মিল জীবনভর ব্যাঙ্ককর্মী গ্রিক মহিলা কবি কিকি ডিমাওলার সঙ্গে। কৌটসৌমবেলির কবিতায় প্রাচীন গ্রিক মিথ-পুরাণের ব্যবহার ও বিনির্মাণ দেখা যায়।

১.
হলুদ ট্যাক্সি

না, মশাই, আপনি অন্যকারো সঙ্গে আমাকে গুলিয়ে ফেলছেন
সে লোক আমি ছিলাম আমি ছিলাম না
হলুদ ট্যাক্সিতে
কখনোই আমি আপনার সঙ্গে পিছন সিটে বসে ছিলাম না
বরফও পড়েনি, আমি সে ব্যাপারে নিশ্চিত
আর না আমার চুলেও পড়েনি বরফকুচি
 বরং উল্টো, আমার তখন চুলই ছিল না
 আপনি কখনোই আমাকে চুম্বন করেননি, অন্যথায় আমার
 মনে থাকতো
আর আপনি যদি আমায় চুম্বনও করতেন, আমি যেকোন উপায়ে সেখানে থাকতাম না
আর ড্রাইভার একটি বারের জন্যও মাথা ঘোরাতো না
সে নীরবে পার হয়ে যেত হ্রদ শেষ পর্যন্ত
 আর তৎক্ষণাৎ হাল ডুবে যেত
 চারদিকের কালো জলে

২.
পেনেলোপি

পেনেলোপি এতক্ষণে জানে
 যে তাকে দেরি করিয়েছে
 সে অসহিষ্ণু সাইরেন্স নয়
নয় বুড়ো সার্সি
তার চালিত আকাঙ্ক্ষা সহ
নয় নষ্ট-হওয়া নোসিকা
ভুল বয়সের সঙ্গে সেলাই করেছে সাদা মোজা আর স্কুল বালিকার স্কার্ট
নয় মানুষখেকো ল‍্যাস্টিগোনিয়ানরা,  নয় পদ্মগুলো
যারা তাকে তার তার কাছ থেকে দূরে রেখেছিল
নয়, হয়তো, পসেইদনের শ্রমিক-সংগঠনীয় ক্রোধ হুংকার
আর গুলিয়েফেলা পুরনো সাথিদের সঙ্গে

প্রাচীন পৃথিবীতে
এতক্ষণে সকাল সকাল অন্ধকার নামতো
 পৃথিবী এতটা চ্যাপ্টা ছিল না
এবং মানুষ মাঝে মাঝে হারিয়ে যেত

1 টি মন্তব্য:

আশ্চর্য দহন || কমলেশ নন্দ || কবিতা

আশ্চর্য দহন কমলেশ নন্দ ১. কিছু মানুষের অতলান্তিক লোভ আর আত্মতুষ্টিগত মনোবিকলনে আজ সমগ্ৰ মানবজাতি প্রতিনিয়ত মৃত্যু ভয়ে অস্থির। অমৃতের পুত্র...