শুক্রবার, ৩১ জুলাই, ২০২০

কিছু বই কিছু কথা || নীলাঞ্জন কুমার || জললেখা

কিছু বই কিছু কথা । নীলাঞ্জন কুমার

জললেখা । অশোক চক্রবর্তী । দিবারাত্রির কাব্য । একশো পঁচিশ টাকা ।

পূর্বের দুটি অসংলগ্ন ও অকিন্ঞ্চিৎকর কাব্যগ্রন্থের পর কবি অশোক চক্রবর্তীর  ২০১৯সালে প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ 'জললেখা ' য় সামান্য হলেও উন্নতি চোখে পড়লো । আসলে তিনি লিখতে লিখতে কবি হবার চেষ্টা করছেন । তাঁর মধ্যে পড়াশোনা ,কাব্যিকতার চরিত্র না থাকলেও  তিনি কবিতার নকল গড় সামলানোর মধ্যে দিয়ে আসল গড় সামলানোর তৃপ্তি পাচ্ছেন । সে কারণে সামান্য হলেও তাৎক্ষনিক মনোযোগ আকর্ষণ করে এই সব পংক্তি : ' তুমি এলে খাতাটি খুলে দেখি কিছুটি নেই! / আসলে জলেই লিখেছি এতকাল!  ' , ' হাজারো ধোয়ামোছার পরও / টিপের  আঠা ও মশারির/  সম্পর্ক  অবিচ্ছেদ্য ' ।
           বইটির ব্লার্বে  লেখা আছে,  ' মানুষটির কবিতার জগতে প্রকরণের বৈচিত্র্য চর্চা হয়তো তেমন নেই ' , এখানে ' হয়তো ' শব্দের মধ্যে দিয়ে ব্যাপারটি হালকা করা হলেও তা কিন্তু প্রকটভাবেই নেই । গ্রন্থের ছোটখাটো শিরোনামহীন  বাহাত্তরটি কবিতা পড়ে এই ধারণা স্পষ্ট যে কবিতাগুলো কাব্যগ্রন্থ হিসেবে গ্রন্থিত হওয়ার অনুপযুক্ত।
           কবিতার এই এক দোষ যে যাদের কবিতা লেখার কথাই নয় , তারাও কবিতার সঙ্গে খ্যাতি ট্যাতির কিন্ঞ্চিত যোগ থাকায়,  তার আকর্ষণে আকর্ষিত হয়ে কবিতা লিখতে শুরু করে দেন । তারফলে সারা বিশ্বে আস্তাকুড়ে ছুঁড়ে দেওয়ার মতো কাব্যগ্রন্থ হচ্ছে হাজারে হাজারে । অশোক চক্রবর্তী র কবিতায় ' সামান্য উন্নতি' নিয়ে  কাব্যগ্রন্থ প্রকাশ করলে হাস্যকর হতে হবে । ফয়সল অরফিয়াসের প্রচ্ছদ বইটির মেজাজ তুলে ধরে না।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

পূরবী-৪৫ || অভিজিৎ চৌধুরী || ধারাবাহিক বিভাগ

পূরবী-৪৫ অভিজিৎ চৌধুরী।। একটা আহ্বান থাকত সেই সমস্ত পুজোর দিনগুলিতে।আকাশের রোদ্দুরের।শরতেরও।আর প্রতিমার সঙ্গে মায়ের গায়ের গন্ধেরও।কোন কোন মু...