Tuesday, August 25, 2020

সৌমিত্র রায় -এর জন্য গদ্য ১১৩ || প্রভাত চৌধুরী || সোনালি বেগম দিবস

সৌমিত্র রায় -এর জন্য গদ্য
প্রভাত চৌধুরী


১১৩.
আজ সোনালি বেগম দিবস । না , জন্মদিন কিংবা বিবাহবার্ষিকী-র দিনও নয়।তবে কী করণে ' সোনালি বেগম দিবস ' ? এর সহজ উত্তরটি হল আজ আমি সৌমিত্র-র জন্য যে গদ্যটি লিখছি , তার বিষয়: সোনালি বেগম।
এখন সোনালি সম্পর্কিত কিছু জানা তথ্য আরো একবার শোনাতে চাইছি। তথ্যগুলি অনুধাবন করুন :
১॥ সোনালি ১৯৯১ থেকে দিল্লি এবং আশেপাশে বসবাস করছে। সেই অর্থে প্রবাসী বাঙালি।
বর্তমান বাসস্থান : SRA- 119B ( Classic Gold ), Shipra Riviera , Gyankhand- lll ,Indira Puram ,Ghaziabad, U P.
আর গাজিয়াবাদ যে দিল্লি-লাগোয়া এটা বলার প্রয়োজন ছিল না।
২॥ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে লুৎফান্নেসা বেগম নামে সুপরিচিত।কলকাতার প্রেসিডেন্সি কলেজ( এবং সায়েন্স কলেজে ) থেকে পদার্থবিজ্ঞানে এম এসসি।
৩॥ প্রাপ্ত সম্মাননা :
       কবিতাপাক্ষিক সম্মান :২০০২
        কৃত্তিবাস  সম্মান : ২০১২
         কবিতাপাক্ষিক ৫০০ সম্মাননা , নভেম্বর ২০১২
৪॥  সোনালি অরিজিন্যাল বহরমপুরের।
৫॥ সোনালি নাসের হোসেন এবং কামাল হোসেনের বোন। এবং রোশমি ইসলামের মা। সূর্য -র স্ত্রী।
৬॥ সোনালি বেগম-এর অধিকাংশ কাব্যগ্রন্থের প্রকাশক কবিতাপাক্ষিক।
ইত্যাকার কারণে সোনালি কবিতাপাক্ষিক পরিবারের অন্যতম একজন।
এই কারণগুলির বাইরেও একটা কারণ আছে। সেটা হল সোনালি-র কবিতা।
 আমি ইতস্তত কিছু কবিতার পঙ্ ক্তি সংগ্রহ করে আপনাদের পড়াতে চাইছি। কেননা এই পঙ্ ক্তিগুলির মধ্যে সোনালি বেগম আমাদের পারিবারিক একজন কবি। আমরা যারা বাংলাকবিতা-কে আধুনিকতার পরাধীনতা থেকে মুক্ত করে পোস্টমডার্ন কালখণ্ডে নিয়ে এসেছি , সোনালি তাদেরই একজন।
পড়তে থাকুন সোনালি বেগম বিরচিত কবিতা-অংশ :
১॥  কবেকার গোলাপ- পাপড়ি এখনও শুয়ে আছে দুটি পাতার আড়ালে নিশ্চিন্ত - গভীর।
২॥ পতনশীল পাতার ভেতর জেগে উঠল সমাবিষ্ট ইচ্ছাপূরণের মহীতল।
৩॥ গামারশ্মির শাণিত পদক্ষেপ হিমায়িত অধিকার ভাঙতে থাকে।
৪ ॥ রেশমগুটির ভেতর জিপসি রাত বসে থাকে।
৫॥ পরিকথার ইউনিকর্নের মতো ধেয়ে আসছে নারওয়াল হোয়েল
৬॥ চুম্বনরত বৃক্ষশরীর ' ইকো ওয়ারিয়র ' দর্শনরত পাখি
৭॥ অসংখ্য প্রশ্নচিহ্ন ছুঁয়ে যায় সমুদ্র- কচ্ছপের পিঠ ---
৮॥ অপেক্ষমাণ হাত গোলাপস্তবকেও বড়ো বেশি নির্জন এবং একা
৯॥   অলিভ ফল থেকে স্রোত হয়ে যাচ্ছে / একস্ট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল , অলিভ / পামেস্ অয়েল।
১০॥ মৌমাছির চাকের স্পর্শেই মধু / ঘূর্ণায়মান শক্তির ছোঁয়ায় ---
এই দশটি চিহ্নের সঙ্গে যুক্ত করছি বুলফাইট কাব্যগ্রন্থের পেছন- মলাটে আমার লেখা কবিতাটি :
হলুদ খামের ভেতর রেখে দিলাম বুলফাইট -এর ধারাভাষ্য /মায়াপর্দা সরিয়ে দেখে নিতে হবে ত্রিমাত্রিক সেই বিবরণ / পোড়া দাগ দেখে পেছিয়ে যাওয়া চলবে না

 চারণকবির কণ্ঠে গল্ ফ-মাঠের গতিশীল গান, শুনতে থাকুন
এই কবিতাটির  শব্দমালা কিন্তু সোনালি-র বুলফাইট বইটি থেকে সংকলিত।

No comments:

Post a Comment

সবাই মিলে সিনেমা হলে (১৪) || কান্তিরঞ্জন দে || কিভাবে সিনেমা " দেখব ?"

  সবাই মিলে সিনেমা হলে (১৪) কিভাবে সিনেমা "  দেখব ?"        সত্যি সত্যি যদি সিনেমার রূপ রস দৃশ্যসুখ উপভোগ করতে চান, তাহলে আগ্রহের ...