মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সৌমিত্র রায় - এর জন্য গদ্য ১৪১ || প্রভাত চৌধুরী || ধারাবাহিক বিভাগ

সৌমিত্র রায় - এর জন্য গদ্য

প্রভাত চৌধুরী



১৪১.

এবার উত্তরবঙ্গ সফর করা যাক। ভ্রমণে নয় , কবিতা-পাক্ষিক-এর ১০ বছর পূর্তি উৎসবের সফর। একে কবিতা-সফরও বলা যেতে পারে।

আমরা উত্তরবঙ্গকে দুই পর্বে ভাগ করে নিয়েছিলাম।

প্রথম পর্বে ছিল কোচবিহার এবং শিলিগুড়ি। জুলাই -এর ৫ এবং ৬ ।  ২০০৩ ।

প্রায় ২২ ঘণ্টা বাসজার্নি করে কোচবিহার বাস ডিপোতে পৌঁছেছিলাম ৫ জুলাই ।আমাদের জন্য অপেক্ষা করছিল সুবীর সরকার বিপুল আচার্য সহ আরো কয়েকজন। আমরাও দলে ভারী ছিলাম।

সকাল ১০ টায় উৎসব শুরুর কথা ছিল। কিন্তু বাসের যান্ত্রিক ত্রুটির জন্য মালদাতে বসে থাকতে হয়েছিল ঘণ্টা তিনেক। কলকাতা থেকে আমরা অনেকেই গিয়েছিলাম। শান্তনু বন্দ্যোপাধ্যায় জানাল এই দলে ছিলাম : নাসের হোসেন শান্তনু বন্দ্যোপাধ্যায় মুরারি সিংহ যূথিকা এবং আমি।

মঞ্চের নামকরণ  হয়েছিল কালজয়ী কথাকার অমিয়ভূষণ মজুমদারের নামে।আয়োজক : সুবীর সরকার এবং বিপুল আচার্য। কবি অরবিন্দ সরকার তখন কোচবিহারের জেলা তথ্য আধিকারিক।

এসবই আমাদের অনুকূলে ছিল। বর্ণময় ছিল ওই উৎসব।

একটি অপ্রিয় ঘটনা ঘটেছিল। আমরা কিছুদিন তা মনে রেখেছিলাম। তারপর ভুলে গিয়েছিলাম। এখনো ভুলে থাকতে চাই।

কোচবিহার থেকে শিলিগুড়ি বাসযাত্রা।মনে আছে ভোরবেলার বাস ধরেছিলাম।

শিলিগুড়ি পৌঁছে শান্তনু চলে গেল এর তুতো দাদা প্রণব চট্টোপাধ্যায়-এর বাড়ি।প্রণব তখন আকাশবাণী শিলিগুড়ির আধিকারিক। এই অনুষ্ঠান ওর পূর্ণ সহযোগিতা পেয়েছিলাম। একথা উল্লেখ না করলে অন্যায় হবে।

আয়োজক ছিলেন তপন মজুমদার এবং কবি অসীম দাস। তপন মজুমদার Books - এর কর্ণধার। কবিতা পাক্ষিকের শুভার্থী। বন্ধুজন। কবিতাপাক্ষিক পত্রিকা এবং প্রকাশনীর বই বিক্রির একমাত্র আশ্রয় ছিলেন তপনবাবু এবং Books.

অনুষ্ঠানটি হয়েছিল রামকিংকর সভাগৃহ , তথ্যকেন্দ্র , শিলিগুড়ি।আমরা সকলে তো ছিলাম। সরকারি সভাঘর।শিলিগুড়ির প্রায় সকল কবিলেখকের আন্তরিকতায় আমরা সমৃদ্ধ হয়েছিলাম।

দুপুর দুটো থেকে প্রায় সন্ধে পর্যন্ত কবিতাপাঠ গান এবং আলোচনায়  পূর্ণ ছিল সভাঘর।

উষ্ণ ভালোবাসা নিয়ে রাতের বাস ধরেছিলাম। 

কলকাতা ফিরে পরের অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি।

এখন মনে হচ্ছে একটা ঘোরের মধ্যে ছিলাম তিন মাস। গ্রামেগঞ্জে যেমন ঠাকুরের ভর হয় , আমাদেরও মনে হয় কবিতার ভর হয়েছিল । এটাকে কিছুতেই গাগলামি বলতে পারি না । এটা কবিতাযাপনের একটা অধ্যায়। যাঁরা এখন লিখতে এসেছেন , আগামীদিনে যাঁরা লিখতে আসবেন , তাঁরা জানবেন কবিতার ভন্য , শুধুমাত্র কবিতার জন্য এই সফর আমরা করতে বাধ্য হয়েছিলাম কেন। 

এই লেখার শেষ পর্বে আমি এর উত্তর দেব। আমার বিবেচনার সেই উত্তরের জন্য পড়তে থাকুন এই গদ্য। সৌমিত্র রায় -এর জন্য লেখা এই গদ্যটি।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

আশ্চর্য সহবাস || শ্রাবণী গুপ্ত || কবিতা

আশ্চর্য সহবাস শ্রাবণী গুপ্ত একটা গোটা জীবন আমরা গাছের বেড়ে ওঠা দেখলাম জাফরীর মতো আলো-ছায়া এসে পড়ল আমাদের গায়ে, হৃদয়ে তবু ঘৃণা করতে গিয়ে আম...