বুধবার, ৪ নভেম্বর, ২০২০

বিদির্ণ হৃদয় || সহেলী দে || কবিতা

বিদির্ণ হৃদয় 

সহেলী দে




নীলাভ ছত্রধারী বৃক্ষতলের স্নেহময় ছায়ায়,

এক তিত্তিরে মিঠেলতা মায়াবী জ্যোৎস্নার অপেক্ষায়~

অতীন্দ্রিয় অন্তরীক্ষে স্বপ্ন বুনে চলেছে~

একঝাঁক *নক্ষত্রের* হীরকমণি` নয়ন, তার বক্ষতলে।

বিছিয়ে দিয়েছে শরীরের লতানো সবটুকু-

অনুভূতির মর্মের সূক্ষ্ম মনিকোঠায়।


পশ্চিমের কোনেদেখা মেঘের রক্তিমছটা,

লজ্জাবস্ত্রখানির আঁচলটিকে ব্যাকুল বনতলে।

সমুদ্রের উথালরহস্য ঢেউয়ের পর ঢেউতে ভিজিয়ে চলেছে, 

অবিরত আনাগোনা প্লাবনের আলিঙ্গন।

ক্লান্ত লতা চায় একটু অবলম্বন-

ঠোঁট ফুলিয়ে বলে, হে নিঠুর....!

তবু পরের ঢেউয়ের সিক্ত স্পর্শ চায় 

তাকে স্যেঁতিয়ে চুপ রাখতে!


সন্ধ্যে হতে আকাশপ্রদীপ জ্বলে;

তবুও আকাশের রক্তিমতা লতার দলকে..

তখনও স্পর্শ করে, লজ্জাবস্ত্রকে আলিঙ্গন করে।

পুবালী হাওয়ায় দিকবিদিক জ্ঞানশূন্য~

ঢেউ, মুক্ত প্লাবনের তরঙ্গে তখনও ব্যস্ত।


রাত নিবির হতে অন্ধকারের গাঢ়ত্ব- 

নক্ষত্রদের দৃষ্টি উজ্জ্বল করে,

লতার চঞ্চলতাকে স্পর্শ করে,

স্যাঁতস্যাঁতে অঞ্চল অস্পষ্ট হয়,

ঢেউয়ের জলচ্ছ্বাসের ধূসর কোয়াশায়|


দিনের পর দিন, রাতের পর রাত!

চলতে থাকে স্বপ্নের ইচ্ছে প্রকাশ- 

আর সাগরবেলার উন্মত্ত আলিঙ্গন;

তিত্তিরে লতা ভূমিতে নিজেকে জরিয়েই বড় হয় একলা।

ধরতে পারে না বৃক্ষের অবলম্বন-

আর হয়তো সত্যই ধরা হয়ে ওঠে না..

তার প্রিয় অবলম্বন! যেখানে বাতাসে মেলবে সে। 


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

শিক্ষা-জীবন || চার্লস মিথুন || অন্যান্য কবিতা

শিক্ষা-জীবন চার্লস মিথুন জগৎ মাঝে জন্ম নিয়েই, শিক্ষা জীবন শুরু। শেখার বয়স শেষ হবে না, হও না যতই বড়॥ মায়ের কাছে শিখবে প্রথম, প্রাণের কথা বলা।...