রবিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২১

পূরবী- ৭৪ ।। অভিজিৎ চৌধুরী ।। Purabi- 74

পূরবী- ৭৪

অভিজিৎ চৌধুরী



রবীন্দ্রনাথ তখন লন্ডন ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি হয়েছেন।ইংরেজি পড়াতেন হেনরি মরলি।রবীন্দ্রনাথ লিখেছেন,তিনি কোন শব্দের অর্থ বলতেন না কিন্তু এমন ভাবে আবৃত্তি করতেন সবটা কল্পনায় স্পষ্ট হয়ে যেত।

সপ্তাহান্তের ছুটির আগের দিন ছাত্ররা তাঁর ডেস্কে নিজেদের নাম না লিখে প্রবন্ধ গুঁজে দিয়ে আসত। আর পরের সপ্তাহে স্যর হেনরি মরলি সমালোচনা করতেন।

রবীন্দ্রনাথ একবার  করলেন কি ইংরেজদের নিন্দে করে একটা প্রবন্ধ  হেনরি মরলির ডেস্কে রেখে এলেন।যদিন সমালোচনা হওয়ার কথা পালিয়ে এসে নির্জনে বসে রইলেন।হয়তো কপালে অশেষ দুঃখ আছে।

এই সময় সহপাঠী লোকেন পালিত এসে পীঠ চাপড়ে দিলেন।

কি লিখেছ রবি,আজ তো তোমার জয় জয়কার।

রবীন্দ্রনাথ লিখেছেন,প্রশংসা বরাবরই আমার ভাগ্যে জোটেনি।সেদিনযেন নতুন সূর্যোদয় হল।

তীর্থ ভাবছিল,সেদিনের যুবকের জীবনে সূর্যোদয় বড্ডো বিলম্বিত ছিল।

কিন্তু যেদিন তা এলো নোবেল প্রাইজের বাহক হয়ে, তিনি ছিলেন অন্যমনে।চাঁদের আলোয় যাচ্ছিলেন বনভোজনে।তা কিন্তু বাাতিল হল না।

শান্তিনিকেতন থেকে ১৯১২ তে ইংল্যান্ড যাওয়ার প্রাক্কালে যখন   Songs Offerings  শুরু করেছিলেন,মনে হয়েছিল এ যেন অন্য কোন আহ্বান।অশ্রুত।

শেষ জন্মদিনের আগে লিখেছিলেন,হে নূতন দেখা দিক আরবার.... 

সেই  নব উন্মেষ  চিরকাল প্রবহমান রইল।

জীবন তো তাই।প্রতিটি ক্ষণ নতুন করে দেখা।


1 টি মন্তব্য:

Student Registration (Online)

Trainee REGISTRATION (ONLINE)

                                                                                    👇           👉             Click here for registration...