বুধবার, ২৬ আগস্ট, ২০২০

নস্টালজিয়া ১৩ || পৃথা চট্টোপাধ্যায় || ন্যানো টেক্সট

নস্টালজিয়া ১৩
পৃথা চট্টোপাধ্যায় 


ছোটবেলায় ভাদ্র মাসের দুপুরে রোদের তীব্রতা খুব টের পেতাম। শরতের সকালের স্নিগ্ধতা,  শিশির ভেজা  শিউলির সুরভি বেলা বাড়ার সাথে সাথে উধাও হয়ে  যেত। আমার ঠাকুমা বলতো তাল পাকা গরম এই ভাদ্দর মাসে। কেন জানি না আজ ঠাকুমার কথা মনে পড়ছে খুব। আমাকে খুব ভালোবাসত।আমি তাকে 'দাদা' বলতাম। আমার দেখাদেখি অন্য ভাইবোনরাও তাকে দাদা বলেই ডাকতো। আমার প্রথম উচ্চারিত 'দাদা ' শব্দটি তার জন্য নিবেদিত হয়েছিল।ভাইফোঁটায় তাকে ফোঁটা দিতাম, রাখী বাঁধতাম ছোটবেলায়। এই ভাদ্রমাসে পুজোর আগে ঘরদোর বিশেষভাবে ঝাড়ামোছা করা হত।'দাদা' এই সময় তার মস্ত লোহার ট্রাঙ্ক খুলে  একান্ত নিজস্ব সম্পদগুলি রোদে দিত।এই ট্রাঙ্কটিকে ঘিরে আমার কৌতুহলের অন্ত ছিল না।  কিন্তু ঠাকুমা এটা খুব যত্ন করে রাখত ও যখন তখন খুলতো না। খুব ভারি ছিল বলে সেটি ঘরের মধ্যে খুলে ভেতরের জিনিসপত্র একে একে বের করে উঠোনে মাদুর বিছিয়ে রোদ্দুরে দিত সব কিছু।  আমি ও অন্যান্য ভাইবোন সবাই ব্যস্ত হতাম সেগুলি বয়ে নিয়ে রোদে দিতে।ট্রাঙ্কটা খোলার সময় অপলক চোখে তাকিয়ে থাকতাম। খুব কম খোলা হত বলে আর ডালাটা খুব ভারি ছিল বলে খোলার সময়  কচ্ করে শব্দ হত এখনও মনে আছে। তাতে থাকত আমার দাদামশাই এর ব্যবহৃত কিছু কাগজপত্র, জামা কাপড়, কাঁসা পিতলের বাসন,হরেকৃষ্ণ লেখা নামাবলি,ঠাকুমার সেমিজ, বই রেখে পড়ার কাঠের তৈরি একটা ছোট ফোল্ডিং টেবিল।  এরপর বের হত   আমার বহু অপেক্ষিত সেই আশ্চর্য বাঘের মাথা  উজ্জ্বল পাথরের চোখ বসানো, বাঘের চামড়া, নখ, হরিণের শিং। এসবই দাদামশাই এর শিকার করা। সেই  কত বছর আগে শিকার করা জ্যান্ত বাঘের মাথা কীভাবে আস্ত থাকতে পারে ছোটবেলায় আমি সেকথা ভেবে পেতাম না।  বিস্মিত হয়ে আমি সেগুলো দেখতাম। খুব ছোটবেলায় ভয় পেতাম সেই বাঘের মাথা দেখে। ঠাকুমা গর্বের সাথে বলত ' তিনি তো ভালো শিকারী ছিলেন,  এ বাঘ হরিণ সব তাঁর নিজে হাতে শিকার করা'। ইতিমধ্যে আমি জ্যোতিদাদার শিকারের গল্প পড়েছিলাম রবীন্দ্রনাথের লেখায়, তা সাথে আমার দাদামশাই এর শিকার কাহিনিকে মিলিয়ে নিতে চেষ্টা করতাম। আমার দাদামশাই এত সাহসী ছিলেন ভেবে আমি তখন বেশ অবাক হয়ে যেতাম। আমার বাবা কাকাও একবার করে ঐ বাঘের মাথা হাতে নিয়ে দেখত। আজকে বুঝতে পারি  ঠাকুমার কত ভালবাসার স্মৃতি জড়িয়ে ছিল  এইসব বহু যত্নে রাখা জিনিসগুলির সাথে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

কিছু বই কিছু কথা - ২০৫ || নীলাঞ্জন কুমার শিরোনাম নেই শিরোপাও || সুবোধ সেনগুপ্ত || সাংস্কৃতিক খবর ত্রিশ টাকা ।

  কিছু বই কিছু কথা - ২০৫ ||  নীলাঞ্জন কুমার শিরোনাম নেই শিরোপাও || সুবোধ সেনগুপ্ত || সাংস্কৃতিক খবর  ত্রিশ টাকা । এমন কিছু কবিতার বই প্রকাশ...