শুক্রবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

কিছু বই কিছু কথা || নীলাঞ্জন কুমার || পরিব্রাজক রবিবার

কিছু বই কিছু কথা । নীলাঞ্জন কুমার 

পরিব্রাজক রবিবার । গুরুপ্রসাদ যশ । বার্ণিক । একশো কুড়ি টাকা ।


যখন কোন কবির একাধিক কাব্যগ্রন্থ প্রকাশের পরও কাব্যগ্রন্থের ভেতরে যে টিউনিং থাকে,  যা পাঠকের মধ্যে অনুরণিত করে ও তাকে মনে রাখতে বাধ্য হয়,  তা কবির অজ্ঞাত থাকা বেশ কষ্টের কারণ হয়ে দেখা দেয় । কবির কবিতার গঠন ও শব্দচয়ন প্রাথমিকভাবে গড়ে দেয় কবিতার ভবিষ্যত । যা বোঝেন প্রকৃত পাঠকবর্গ । মনে রাখা উচিত পাঠক বোকা নয় , অনেক সময় কবির থেকে বেশি বোঝেন । বহু  কবি পাঠককে বোকা ভেবে তাঁদের সামনে ছুঁড়ে দেন অপাঠ্য কিছু উচ্চারণ,  যা তাঁদের বিব্রত করে ।
            কবি গুরুপ্রসাদ যশের কাব্যগ্রন্থ ' পরিব্রাজক রবিবার ' পড়ে সে কথাই উঠে আসে । ' চেনা-  অচেনার ভীড়/  সমন্বিত আমির জটিল বিস্ময়/  আমি আমিতে হারিয়ে গেলাম ।। ' ( ' আমি '), ভালোবাসার কোন ভৌগলিক/  সীমারেখা নেই/  দুচোখ ও হ্ঈদয় বলে দেয়/ ভালোবাসার কথা ।' ( ' সীমারেখা ')-এর মতো কবিতা যে সঠিক মান্যতা নিয়ে গড়ে ওঠে না,  কবির বোঝা উচিত । তাঁর আরো বোঝা উচিত যে,  একটি কবিতার প্রতিটি শব্দ মহার্ঘ ।  প্রকৃত পাঠক তার থেকে অমৃত রস পান করেন।
           তবু তারই মধ্যে : ' আমার মন খারাপে/  শিশির বিন্দু/  তোমার/  বুকের উত্তাপে শুকাবো বলে/  অপেক্ষা করি ।। ' ( ' অলীক স্বপ্ন ') , ' খিদের শিল্প হয়ে গজিয়ে ওঠে/  ভাতের শরীর ' ( ' নদী ২') মন্দের ভালো হলেও এখানে 'শুকাব' -র বদলে শুকোবো আর  'গজিয়ে ' শব্দের বদলে অন্য শব্দরূপ ব্যবহার ভিন্ন  মাত্রা পেতো । 'পরিব্রাজক রবিবার ' কাব্যগ্রন্থের নামকরণ এই নামের কবিতার মতো অকিঞ্চিৎকর  ।
প্রচ্ছদে ওই শিরোনামের ওপর দাঁড়িয়ে কৃষ্ণেন্দু মন্ডল খেই হারিয়েছেন ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

আটপৌরে কবিতা ৮৫-৮৭ || অলোক বিশ্বাস || "আই-যুগ"-এর কবিতা

আটপৌরে কবিতা : অলোক বিশ্বাস ৮৫. কোভিড হস্পিটাল ছাড়িয়ে ভালোবাসা লেখা গাড়ি পড়েছে দাঁড়িয়ে ৮৬. লিখছি কোভিড ডায়রি বারেবারে পেন ফস্কে যাচ্ছ...