শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২০

পূরবী~ ৪৬ || অভিজিৎ চৌধুরী।। ধারাবাহিক

পূরবী~৪৬

অভিজিৎ চৌধুরী।।




সালটা বোধহয় ১৯১৫ হবে।জাতীয় জীবনে কোন নতুন সংকট দেখা দিয়েছে।নোবেল প্রাইজ তাঁর কাছে বাসি হয়ে গেছে।মন ভালো নেই কবির।

[23/10, 2:59 pm] BDO 3: জোড়াসাঁকোর দালানে ভারতবর্ষের বিভিন্ন প্রান্ত থেকেও মানুষ এসেছেন এক আহূত সভায়।সভার সময় পেরিয়েযাচ্ছে রবীন্দ্রনাথ আসছেন না।কলরব বাড়ছে।কি ভেবেছেন তিনি আমাদের!

[23/10, 2:59 pm] BDO 3: ৫-১০-১৫ মিনিট অতিক্রান্ত হওয়ার পর তিনি এলেন, ম্লান মুখ।তবুও হেসে হাতজোড় করে সকলের কাছে ক্ষমা চাইলেন।

[23/10, 2:59 pm] BDO 3: অস্ফুট স্বরে বললেন,একটু আগে মারা গেছে।

[23/10, 2:59 pm] BDO 3: পুরো সভায় ছিলেন রবীন্দ্রনাথ। কেউই টের পাননি।পরে অনেকে জেনেছিলেন।১৯১৫ য় তাঁর বয়স ৫৪।পূরবীর গোধূলির আলোমাখা আকাশপটের উপরে-সেইটুকুই জীবনের পল উপলে রইল।

[23/10, 2:59 pm] BDO 3: সভামুখ্য রামেন্দ্রসুন্দর ত্রিবেদী বললেন,বেলা কেমন আছে!

[23/10, 2:59 pm] BDO 3: বাহাত্তরে তিনি লিখলেন শেষের কবিতা।আজও অমিত লাবণ্য বাঙালির হার্টথ্রব।

[23/10, 2:59 pm] BDO 3: সজনীকান্ত দাস কি বিদ্ধ করে চলেছেন তাঁকে! ৫০ উতীর্ণ করার পর ঠিক করেছিলেন রাগ অভিমান থেকে অবসর নেবেন।ব্রাহ্ম আভিজাত্যে চিরকালই নীরব থাকতেন।মেনে নিতেন তিরস্কার।হয়তো সংশোধন চলতো পাণ্ডুলিপির ড্যুডলিঙে যেমন হতো।

[23/10, 2:59 pm] BDO 3: তীর্থের মনে হয়, হে মহা জীবন - তুমি ভাস্বর আজও।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

অবহেলা || দীপক মজুমদার || অন্যান্য কবিতা

অবহেলা দীপক মজুমদার আর গোপন রাখব না আমাদের সম্পর্কের ইতিবৃত্ত।  শব্দের খাঁজে লুকানো গোলাপের উষ্ণতা। ঝাউবনের নির্জনতায় জৌলুস সম্পৃক্তি। প্রি...