শুক্রবার, ২০ নভেম্বর, ২০২০

কিছু বই কিছু কথা ১৯৮ || নীলাঞ্জন কুমার || স্মৃতিরাই সুন্দর || গৌরাঙ্গ মিত্র || কবিতা পাক্ষিক

 কিছু বই কিছু কথা ১৯৮ ।  নীলাঞ্জন কুমার




স্মৃতিরাই সুন্দর । গৌরাঙ্গ মিত্র । কবিতা পাক্ষিক । চল্লিশ টাকা ।


কবি গৌরাঙ্গ মিত্রের কবিতার প্রধান দিক তিনি ধীরে ধীরে উঠে এসেছেন  কবিতায় তাঁর বারোটি কাব্যগ্রন্থের ভেতর  ভালো খারাপের মধ্যে দিয়ে ।  এই কবির সঙ্গে তাঁর  অতীতের কয়েকটি  কবিতার বই নিয়ে জোরালো মতান্তর হয়েছিল কিন্তু এখন তাঁর কবিতায় পাই কবিতার আসল নির্যাস তা বাহবাযোগ্য । সে কারণে তাঁর প্রথম কাব্যগ্রন্থ ' বুদ্ধদেব সমীপেষু 'র মতো কাব্যগ্রন্থের সঙ্গে আলোচ্য গ্রন্থ ' স্মৃতিরাই সুন্দর ' র মানগত দুরত্ব কয়েক যোজন । এই কাব্যগ্রন্থে : ' অন্ধকারে ঘরের দেওয়ালগুলো হামাগুড়ি দিয়ে/  আমাদের ঘরবাড়ি থেকে বহুদূরে চলে যাচ্ছে ।' ( ' অন্ধকার ' ) , ' ছোলা উপড়ে নিয়ে কাঁচা ছোলা খেতে খেতে ভুলে গিয়েছি/  সার্কাস তাঁবুতে আমার জন্য হাপিত্যেশ করে আছে/  রাজনীতি নিরপেক্ষ এক জিরাফ ' , ( ' ভুল ' ) আমাদের কাব্যিক ঋদ্ধতায় নিয়ে যায় ।
      ' স্মৃতিরাই সুন্দর ' পুণঃপাঠের পর বুঝতে পারি এ কবিতা আরো বছর দশেক পর পড়া হলে হয়তো  একই নির্যাস পাবো । বইটিতে সাধারণ কথাবার্তা,  সাদাসিধে ব্যঙ্গ,  দিলখোলা কবিতার সন্ধান পাওয়া যায় । যেমন: ' আমাকে স্নিগ্ধ করবে  বলেই আজকের দিনটা/  সুশীতল জল আর বৃষ্টি নেমেছে গায়ে ' ( স্বপ্ন)  ' কুপিত , বিরক্ত, উত্তেজিত সুখবিলাস/  নিজের মনেই বলে উঠলো:  / দুঃখ ও ট্রাম কখনো একলা আসে না। ' ( ' দুঃখ ও ট্রাম ')।
             এ কারণে গৌরাঙ্গ মিত্রের বই এলে পড়তে  আগ্রহী হই । খুশি করে মন তাঁর সারল্য । বিভাবসুর প্রচ্ছদের আবস্ট্রাকট অঙ্কনের ভেতরে কবিতার সারল্য লেগে থাকে । রঙ ও মননের কারনে ওয়াও  বলে ফেলি ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

সবাই মিলে সিনেমা হলে ২১ || সিনেমা ও বিরতি || কান্তিরঞ্জন দে

  সবাই মিলে সিনেমা হলে ( ২১) সিনেমা ও বিরতি  কান্তিরঞ্জন দে        নমস্কার ।  উৎসবকালীন বিরতির পর আবার ফিরে এলাম । আমরা যখন সবাই মিলে সিনেমা...