শনিবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০২১

কিছু বই কিছু কথা ২৬৩। নীলাঞ্জন কুমার || না কোথাও জংশন / ফ্রাকটালপনা । শান্তনু রায় । গ্রাফিত্তি ।

কিছু বই কিছু কথা  ২৬৩। নীলাঞ্জন কুমার




না কোথাও জংশন / ফ্রাকটালপনা । শান্তনু রায় । গ্রাফিত্তি ।


কবি  শান্তনু রায়ের ব্যতিক্রমী চটি কাব্য পুস্তিকা  ' না কোথাও জংশন/  ফ্রাকটালপনা  ' র ভেতরে তিনি ' কেয়ারফুলি কেয়ারলেস ' ভাবে মানুষের কাছে ছড়িয়ে দিতে চেয়েছেন কাব্যিক কিছু কথা যা আমাদের নিয়ে চলে কাব্যিক দিকগুলোর থেকে আলাদা কিছুর দিকে ।  যেমন:  ১। ' চোখ থেকে ছিটকে যাচ্ছে ঘুম  তাও চারদিকে অ্যাতো স্বপ্ন! ' ,২।  ' যে ভোর মানে মৃত্যু জেনেছে তার স্বপ্ন কোন চিহ্নে ? ' ( ' এখান থেকেই ' ) ,  ' কিছু ভালো লাগছে না/  ঝাপসা ঘরের জট টুংটাং রাঙতা মোড়া সকাল বিকেল ' ( নার্সারি স্কুল)  , ' একটা ঠান্ডা তারা খসে পড়ে আমার শরীরে/  কে পারবে কে আমার শুকনো জখমগুলো/  খুলে দেবে ফের ' ( কয়েককোয়া কোয়ান্টাম কোয়ান ') যা আমাদের পুরনো ধারাবাহিকতাকে ধাক্কা দেয় ।
         কবির এ সব প্রায় অগোছালো বাক্যবিন্যাস ও আপাত বাউন্ডুলে দিকের সামনে দাঁড়িয়ে বুঝতে পারি কবিতা কতখানি আলাদা হয়ে যাচ্ছে । কবিতার ভাবনা যে তাতে পুষ্ট হচ্ছে তা না বলা গেলেও কবিতার জন্য কিছু চিন্তা ভাবনা  যে চলছে তা নিশ্চিত বলা যায় । প্রতিদিন যে অগনিত পুরনো কবিতা নতুন আঙ্গিকে বলার তাগিদ বাড়ছে তার থেকে স্বাদবদল যে ভীষণ প্রয়োজন তা বুঝিয়ে দিয়ে কবি এভাবে ভেঙে চলেন কাউকে রেয়াত না করে ।
              কবির পদ্য ও গদ্যধর্মী দু ধরনের কবিতা তাই পড়তে হয় মগ্ন হয়ে । নাহলে যে বহু ফাঁক রয়ে যাবে আগামীকালের কবিতা চিনে ফেলার ক্ষেত্রে ।




কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

পূরবী~ ৫৯ || অভিজিৎ চৌধুরী || Purabi~ 59

  পূরবী~ ৫৯ অভিজিৎ চৌধুরী শেষ লেখা কবিতায় রবীন্দ্রনাথ একদিন লিখলেন,  মিথ্যে  বিশ্বাসের ফাঁদ পেতেছো নিপুণ হাতে। তীর্থও জানে,একদওন সব শূন্য কর...