চলো পাল্টাই

চলো পাল্টাই
চিন্তন। মন্থন। চিরন্তন।

শুক্রবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২২

কিছু বই কিছু কথা - ৩০৩। নীলাঞ্জন কুমার কবিতা সমগ্র । গৌতম দাশগুপ্ত । পাঠক,Gautam Dasgupta

 কিছু বই কিছু কথা - ৩০৩। নীলাঞ্জন কুমার




কবিতা সমগ্র । গৌতম দাশগুপ্ত । পাঠক,  কলকাতা- ৯।দেড়শো টাকা ।


    ২৯১৬ সালে প্রকাশিত কবি গৌতম দাশগুপ্তের কবিতা সমগ্র নিয়ে আর এক বিশিষ্ট কবি পার্থসারথি দত্তের সঙ্গে কলকাতার ইন্ডিয়ান কফি হাউসে আলোচনা করতে গিয়ে তাঁর একটি মন্তব্য আমায় ভীষণ আকর্ষণ করে । তিনি বলেন,  'গৌতম দাশগুপ্ত এমনই কবি যিনি অতি সাধারণ এক কবিতার ভেতর কিভাবে অনবদ্য মাত্রা যোগ দেবেন তা দেবা ন জানন্তি । ' কবি গৌতম দাশগুপ্তের কবিতা সমগ্র আঁতিপাতি করে পড়ে বুঝতে পারতাম পার্থসারথি মোটেই ভুল কথা বলেননি । কারণ ' লস অ্যালামোস' নামে একটি কবিতায়  কবি গৌতম প্রচুর শব্দবন্ধনীর ভেতর দিয়ে মাঝখানে এমন একটি পংক্তি ছুঁড়ে দেন যার সামনে হাজার বছর দাঁড়িয়ে থাকতেও রাজি । পংক্তিটি:  ' অন্ধ মেয়েকে খাদের পাশে/  খেদিয়ে দিয়ে/ পঙ্গু বাপ গায় যৌনগান ' আবার ' ঝোপের ভিতর ' কবিতার শেষে মোক্ষম কথাটি বসিয়ে দেন:  ' কম্যান্ডোরা হরিণ দ্যাখাবে/  কেননা দুষ্মন্ত সেতো/  ঝোপের ভিতর ।' তাছাড়া তিনি সম্পূর্ণ আলাদা আকৃতিতে তিনি লেখেন
' সাহারান পুরের চিঠি ' তে : ' চাঁদের আলোয়/  এনভেলাপে/  তোমার আমার মধ্যে/ সেই কালপুরুষ।'
                    একথা বলা যায় প্রবীণ কবি গৌতম দাশগুপ্ত আদ্যোপান্ত এক নাগরিক কবি । দীর্ঘ জীবন দিল্লিতে বসবাস করে তিনি উপলব্ধি করেছেন মানুষের চরিত্র স্বার্থপরতা,  চাটুকারিতা,  দুর্নীতি,  লোভ,  তৃষ্ণা ।
কিন্তু ব্যক্তিগতভাবে তাঁকে সে সব ধরতে পারেনি । আর পারেনি বলে তিনি অবলীলায় এদের বিরুদ্ধে সাহসী উচ্চারণ গড়ে তোলেন । গৌতমের কবিতায় কিছুটা পোস্টমডার্ন ও পোস্টকলোনিয়ালিজমের চরিত্র দেখা যায় । যেমন:  '  একবারই জ্বলে উঠতে দেখি/  ন্যাবা চোখে ইনসানিয়াৎ/  কার্সিনোমাইজ ও বোনম্যারোতে/ গান করে ফ্রস্টবাইট বিবেক ' ( ' একবার জ্বলে ওঠে '), আমি মুখে পেটিকোট বেঁধে  একবার পাপ্পু যাদব/  আবার বিরাপ্পনের দরজায়/  শেষে বেগুসরাই সেসনজাজের / রুল আর ইঙ্ক রক্তাক্ত গোঙাই/  আপনিই চন্ডালিকার আনন্দ/  গিভ মি মোর/  গিভ মি মোর ...' চমকে দেয় ।
           তাঁর মোট ছয়টি কাব্যগ্রন্থ নিয়ে গড়ে উঠেছে তাঁর কাব্য সমগ্র  । যা বেশ কিছু বছর আগে পর পর প্রকাশিত হয়েছে। আসলে গৌতম দাশগুপ্ত নিজেকে ভাঙতে জানেন। তা জানেন বলে যতক্ষণ না তিনি ভাঙাগড়ার ভেতর নিজেকে সম্পৃক্ত করতে পারছেন ততক্ষণ মানুষের কাছে কবিতাকে নিয়ে যান না । বহু কবি অনালোকিত থেকে যান ।তাদের খুঁজে বার করা একজন কবিতাপ্রেমীর ধর্ম ।গৌতম দাশগুপ্তকে খুঁড়ে খুঁড়ে দেখতে দেখতে যে মণিমুক্তো পাওয়া যায় তার কি দাম হয় ? কে বলবে?

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Registration (Online)

Trainee REGISTRATION (ONLINE)

                                                                                    👇           👉             Click here for registration...