Thursday, June 4, 2020

কিছু বই কিছু কথা || নীলাঞ্জন কুমার

কিছু বই কিছু কথা । নীলাঞ্জন কুমার

চূর্ণলিপি । মন্দিরা রায় । দিবারাত্রির কাব্য । একশো পঁচিশ টাকা ।

কবি মন্দিরা রায় যখন কবিতা লেখেন তখন কথা বলে ওঠে নীরবতা ।খুলে যায় গোপনতা ।আপনি আপনি সুর বেজে ওঠে তন্ত্রীতে তন্ত্রীতে । তার প্রমাণ:  ' মেয়েটি জলের টিপ বুকে করে/  নিয়ে গেল ঘরে/  গোধূলি- সন্ধ্যার পরে/ ম্যাজিক ছড়াল সাদা যুঁই।' কিংবা,' শিয়রে রূপোর কাঁটা, ভাগ্যিস ঘুমিয়ে পড়িনি ।/ কিশোরী অবুঝ ভারি। পায়ে হেঁটে আন্  বাড়ি  যায় । '  মন্দিরা কম লেখেন বলে তার ভেতরে জমাট বাঁধে তন্ময়তা , উথাল পাতাল করে বেরিয়ে পড়ার জন্য,  ঠিক তখনই তিনি কলম ধরেন । ভালো লাগে তাঁর এই প্রক্রিয়া ।
             মন্দিরা তেমন পরিচিতি পাননি তাঁর কম দেখার কারণে । তিনি এসব তুচ্ছ ব্যাপার নিয়ে মাথা ঘামান নি।
তাই লিখতে পেরেছেন : ' উল্টো চাঁদের ছায়া গন্ডুষে ভেসে ভেসে যায় ।, ' স্থিরতার ঢেউ ভাঙে কান পেতে শুনেছো/ কখনো।'
           মন্দিরার প্রধান বন্ধু নিঃসঙ্গতা ।যারা তাঁর সঙ্গে কথা বলে ।  হৈ হৈ করে । মুহূর্ত থেকে মুহূর্তে তিনি নতুন নতুন আবিষ্কারের মতো শব্দ ছন্দ করায়ত্ত করেন : 'কালাপাহাড়ের দেশে উর্ধমুখ আদেখলার মতো । বলো তুমি কত সহিষ্ণুতা চাও? ' তার প্রমাণ ।
      বহুদিনের কবিতাযাপনে মন্দিরার বই সংখ্যা পাঁচ । তাঁর তাড়াহুড়ো নেই । এতো ভালো কবিতা আরো পড়তে মন চায় । ফয়সল অরফিয়াসের প্রচ্ছদ বেশ নতুন ধারার । কিছুটা সেকেলে আঙ্গিকে প্রচ্ছদটি খুলেছে ।

No comments:

Post a Comment

আটপৌরে কবিতা ৪৪৬- ৪৫০ || নীলাঞ্জন কুমার || ধারাবাহিক বিভাগ

আটপৌরে কবিতা নীলাঞ্জন কুমার ৪৪৬ কুসুমাস্তীর্ণ /কণ্টকাকীর্ণ/  স্বাভাবিক          ) পথ ( চলতে চলতে লক্ষ্যে এগোন । ৪৪৭ মোব...