Friday, June 26, 2020

পূরবী~ ১১ || অভিজিৎ চৌধুরী || ধারাবাহিক উপন্যাস

পূরবী~ ১১
অভিজিৎ চৌধুরী

আমি বললাম,কে তুমি!
সে বলল,মৃত্যু দেবতা তোমার।
আমি বললাম,বা- রে তুমি এতো সুন্দর।
হাসল সে।বলল,ব্যথা হবে খুব।
তিনি এবার বললেন,চোখ বোজো।
হাসলাম আমি,বললাম- বেঁচে থাকার চেয়েও!
অন্ধকার হয়ে যাবে চারপাশ!
সামান্য সময়।
সেই যে মাথায় স্ট্রিচ হয়েছিল সেই ব্যথা!
টের পাবে না।শেষ কষ্ট।
সব ভুলে যাব এই যে ছিলাম।
পাবে।নক্ষত্রলোক দিয়ে যেতে যেতে তুমি দেখবে যা তুমি জীবনভর দেখতে চেয়েছো।
তারপর সবুরে মেওয়া পাব   তো"
রবীন্দ্রনাথ বললেন,মৃত্যু মানে রাত্রি।জীবন মানে দিন।প্রতিমা বললেন মৃত্যু কি তবে নির্বাণ!
মনে রাখতে ইচ্ছেই হবে না।
সে- কি সম্ভব!
দীর্ঘশ্বাস পড়ল তাঁর।ছুটির মৃত্যু কাছ থেকে দেখেছি।সে বড় সহজ ভাবে নিয়েছিল।
যদি সহজ ভাবে নিতে পার বউমা।
বলো বউমা।
প্রতিমা বললেন,বাবামশাই।
আমার কথা মনে থাকবে"
না,আপনি তো দেবলোকে যাবেন।
সেই প্রেতলোক থেকে"
ভালোবেসেছিনু এই ধরণীরে।বাকি যে জানি না।
তীর্থ এসব ভাবছিল।যদিও জানে মোক্ষ,নির্বাণ সে যাই হোক বহু দূরে।
ড্রাইভারকে প্রায় মধ্যরাতে বলল,ভাই চলো একটু কোয়ারেন্টাইনে যেতে হবে।

No comments:

Post a Comment

সবাই মিলে সিনেমাহলে~ ৩ || কান্তিরঞ্জন দে || প্রতি শনিবার

সবাই মিলে সিনেমাহলে~ ৩ কান্তিরঞ্জন দে সিনেমাকে  বই  বলবেন  না , প্লীজ। কারণ , দুটো সম্পূর্ণ আলাদা জিনিস ।        আপনি কি আপেলকে ...