Sunday, June 14, 2020

গ্রিসের নতুন কবিতা || রুদ্র কিংশুক || দিমিত্রিস লিয়ন্টজাকোস- এর কবিতা

গ্রিসের নতুন কবিতা
রুদ্র কিংশুক
দিমিত্রিস লিয়ন্টজাকোস- এর কবিতা


গ্রিসের শূন্য দশকের কবিতায় দিমিত্রিস লিয়ন্টজাকোস (Dimitris Leontzakos, 1974) বিশিষ্ট নাম। নতুন বিষয় ও নিরীক্ষার মিলনে তাঁর কবিতা যথার্থই নতুনত্বের দিশারী। তাঁর জন্ম গ্রিসের  কাভালায়। বর্তমানে তিনি থেসালোনিকি নগরীর বাসিন্দা। তাঁর কাব্যগ্রন্থগুলি  'কমিক' (Comic, 2001), 'সার্সি' (Circe, 2004) ও   'টাইগার ইন অ্যাকুরিয়াম ' (Tiger in Aquarium, 2008)। দিমিত্রিস-এর কবিতা বহুরৈখিক। একটি নির্দিষ্ট অর্থের দিকে তাঁর ন-র তার না-ঝোঁক। তাঁর  কবিতার শরীরে আছে এক ধরনের অনির্ণেয়তা বা অনির্দিষ্টতা। পোষ্টমডার্ন কবিতার সব রকম বৈশিষ্ট্য  তাঁর  কবিতায়  প্রকাশিত। বাংলা ভাষার তরুণ কবিদের কবিতার পাশে তাঁর কবিতা পাঠ করলে বোঝা যায় সারা দুনিয়ার কবিতায় একটা বিপুল পরিবর্তন ঘটে চলেছ।


 অ.    এটাই সত্য

আমি কেবল সংগীতকে সমর্থন করিনি ।
 গাছ কি কেবল সে, যে-কোন মুহূর্তে
 সহজভাবে
 সহজভাবে বলে:
 আমি ছেড়ে যাচ্ছি।




আ.    গণনা
১.
কবিতার মিশ্রণ:
 এটা মধ্যরাত।
২.
পাঁচ ঘন্টা ধরে
বরফ পড়ছে:
 তথাপি আমার হাতের ভেতর
কবিতা
আঙুলের মতো
গলেনা
৩.
আরো নীরবতা নয়

৪.
যখন বৃষ্টি ঝরছে
তখনই বাখের সুন্দরের আমন্ত্রণ





ই.     বিষাদ ও ভাষার মহাকাব্য সেনেকায়

 এটাই সেই
পাথরের ঢাল
যেখানে কোন শব্দই
গড়িয়ে পড়ে না।





ঈ.   ভেক্টর এক্সটেনশন

 ১.
গ্যালিলিও: মহাবিশ্বের নরওয়ে ।

২.
দেবতার অংশগ্রহণ ও উদাসীনতা।

৩.
/ বাক বৈকল্য /

৪.
আকাশ যদি গ্রিক বলে
 মহাশূন্য কি তা  পড়তে পারবে?

৫.
/গদ্যের কয়েকটা অক্ষর মাত্র/

৬.
যখন ভোরবেলা আমি কথা বলতে পারিনা,

 সেটা কি  নরত্বারোপ
অথবা নিরক্ষতা ?
৭.
অশ্রু,  শব কি অনূদিত
 অথবা নিষ্কাশিত দৃষ্টির থেকে
৮.
 যেকোনো ভাবে
 আমরা আমরা ভেঙে পড়বো।

৯.
 /এটাই একমাত্র অসীম/

 ১০.
কাদার বামন
ঠাস বুনন।

১১
মিথ্যা আকর্ষণ
শব্দের সন্তান।




উ.   পাখিদের মেরুদন্ডে বেদনা

কণ্ঠস্বর ছাড়া ভাষা আলোকে  নিরস্ত্র  করে।



ঊ.  ঘুম

আমার ঘুম স্বরবর্ণ ঘাসের ওপর কম্পমান ,
বিরাট নীরব পতঙ্গ,
 উড্ডীয়মান রথ
শ্বাপদের চাবুকের ঘায়ে
পথগুলো দেখছে সমুদ্র -হাতি
তারপর আরো পৌরাণিক স্তন্য পাখি
 শোভাযাত্রা আরো বড় হয়ে ওঠে
যতক্ষণ না ভোর হয়
 এশিয়া
বকগুলো আমাদের স্বাগত জানায়
আমি কিছু স্মরণ করতে পারিনা
 ভুলে যাওয়াটা খুব দ্রুতি সম্পন্ন
আমি জেগে উঠি ...

ঋ।।      পোল‍্যান্ড

পোল্যান্ডই যন্ত্রনা। কাল্পনিক, মহান ও উচ্চবংশীয়দের দেশ। যদিও উঁচু একেবারেই মহৎ মহৎ মহৎ নয়। পোল্যান্ডইযন্ত্রণা। একটা দেশে যেখানে উঁচু অবতরণ করে শরীরে একটা ছোট কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ অংশ থেকে, যেটা বিশেষভাবে পাগলামিরও অংশ। আমি জানবো না স্বাভাবিকভাবে সেটা পাগলামির পা কি না । আমি এরকম ধরছি না । নিৎসে, যিনি ---- একটু দেরীতে, সত্যি বলতে, পোলিশদের ঘোষণা  মতো সেই রাতে যখন তিনি পাগলামির মধ্যে ডুবতে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, চুম্বন করেছিলেন একটা ঘোড়ার মাথা,  আমি এটাকে পাগলামি মনে করি না একেবারে একেবারে। এটাকেই আমি দেবদূত বলি। জগতের দেবদূত বেদনা নির্মিত । ইতিহাসের দেবদূত পোলিশ। পল ক্লি  এঁকেছেন তাঁকে । বেঞ্জামিন লিখেছেন তাঁকে নিয়ে।

1 comment:

  1. অসাধারণ কবিতা পড়লাম। ধন্যবাদ।

    ReplyDelete

আটপৌরে কবিতা ৪৪৬- ৪৫০ || নীলাঞ্জন কুমার || ধারাবাহিক বিভাগ

আটপৌরে কবিতা নীলাঞ্জন কুমার ৪৪৬ কুসুমাস্তীর্ণ /কণ্টকাকীর্ণ/  স্বাভাবিক          ) পথ ( চলতে চলতে লক্ষ্যে এগোন । ৪৪৭ মোব...